শনি. সেপ্টে ২৬, ২০২০

দৈনিক আজকের বাংলাদেশ

সত্য প্রকাশে আপোষহীণ…

কালো কাপড়ে চোখ বেঁধে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন; সহকারি ২ প্রক্টরের পদত্যাগ

আজকের বাংলাদেশ রির্পোট:-

গোপালগঞ্জ বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিতে শিক্ষার্থীদের আন্দোলন অব্যাহত রয়েছে। বৃহস্পতিবারও ৮ম দিনের আন্দোলন কর্মসূচি পালন করছে শিক্ষার্থীরা। এদিন কালো ব্যাচ চোখে বেধে ৩ ঘন্টাব্যাপি মানববন্ধন করে বিশ্ববিদ্যালয়ের আন্দোলনকারি শিক্ষার্থীরা। ইতিমধ্যে বিদ্যমান পরিস্থিতিতে বুধবার বিকেল ৩টায় বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের ৫ সদস্য বিশিষ্ট তদন্ত কমিটি ক্যাম্পাসে এসে তাদের কার্যক্রম শুরু করেছেন। কমিটির প্রধান ও ইউজিসির সদস্য মুহাম্মদ আলমগীর বলেন, আমরা সব পক্ষের সঙ্গে কথা বলে পরবর্তী পদক্ষেপ নেবো। কমিটির সদস্যরা শিক্ষক- শিক্ষার্থীদের সঙ্গে কথা বলেছেন। বৃহস্পতিবার তদন্ত কমিটি তাদের তদন্ত কাজ শেষ করে সন্ধ্যায় ঢাকার উদ্দেশ্যে রওনা হন। এদিকে বিশ্ববিদ্যালয়ে সকাল সাড়ে ১১ টায় সংবাদ সম্মেলন করেন আন্দোলনকারি শিক্ষার্থীরা। এসময় শিক্ষার্থীরা বলেন জাতির পিতার নামাঙ্কিত বিশ্ববিদ্যালয়ে ভাইস চ্যান্সেলর খোন্দকার নাসিরউদ্দিন এর সকল অনিয়ম, দূর্নীতি, নৈতিক স্খলন, ভর্তি ও নিয়োগ বানিজ্য এবং স্বজনপ্রীতির বিরুদ্ধে বিশ্ববিদ্যালয়ে অনশন এবং অবস্থান কর্মসূচি পালন করছি। এই আন্দোলনকে একটি মহল ভিন্নখাতে প্রবাহিত করার চেষ্টা করছে। আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। শিক্ষার্থীরা বলেন, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের তদন্ত কমিটি বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে অবস্থানরত আছেন। আমরা আশা করবো তারা ভাইস চ্যান্সেলরের সকল অনিয়ম, দূর্নীতি, স্বজনপ্রীতি, নিয়োগ ও ভর্তি বাণিজ্য এবং অন্যান্য সকল অপকর্মের সুষ্ঠু তদন্ত করে এর সত্যতা সাপেক্ষে বস্তুনিষ্ঠ ও প্রকৃত প্রতিবেদন দাখিল করবেন।তারা আরো বলেন, আমাদের এই ন্যায্য আন্দোলনকে নস্যাৎ করতে আমাদের ছবি ব্যবহার করে ফেইসবুকে আইডি খুলে অশালীন ও বাজে মন্তব্য করছে একটি মহল। এর দ্বায় সাধারণ শিক্ষার্থীদের উপর চালানোর চেষ্টা করছে। এই ধরনের কার্যক্রমে সাধারণ শিক্ষার্থীবৃন্দ কোনোভাবেই জড়িত নয়। এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানায় শিক্ষার্থীরা। বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডির আরো ২ জন সহকারি প্রক্টর পদত্যাগ করেছেন। কৃষি বিভাগের সহকারি অধ্যাপক ড. মো. নাজমুল হক এবং ফার্মেসী বিভাগের সহকারি অধ্যাপক ড. মো. তরিকুল ইসলাম পদত্যাগ করেন। পদত্যাগের বিষয়ে নিশ্চিত করে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিষ্টার প্রফেসর ড. মো. নুরউদ্দিন আহমেদ বলেন কৃষি বিভাগের সহকারি অধ্যাপক ড. মো. নাজমুল হক এবং ফার্মেসী বিভাগের সহকারি অধ্যাপক ড. মো. তরিকুল ইসলাম সহকারি প্রক্টর থেকে পদত্যাগ করেছেন।সদ্য পদত্যাগ করা ফার্মেসী বিভাগের সহকারি অধ্যাপক ড. মো. তরিকুল ইসলাম বলেন বিশ্ববিদ্যালয়ে আমি একজন সহকারি প্রক্টর ( ছাত্র বিষয়ক উপদেষ্টা কমিটি) পদে দ্বায়িত্ব পালন করছি। বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের প্রশাসন বিরোধী অহিংস আন্দোলনের সময় শিক্ষার্থীদের উপর বহিরাগত সন্ত্রাসীরা হামলা করে। এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের ২০জন শিক্ষার্থী আহত হয়। যার মধ্যে আমার বিভাগের ২ জন শিক্ষার্থীও রয়েছে। তিনি দুঃখ প্রকাশ করে আরো বলেন হামলায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনিক কর্তৃপক্ষ কোনো কার্যকরি পদক্ষেপ নেয়নি বরং ছাত্রদের উপর বহিরাগত সন্ত্রাসী লেলিয়ে দিয়েছেন। তারপরও আমি কর্তৃপক্ষের কাছ থেকে শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তা বিধানের জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপের আশায় থাকি। এরই মধ্যে জানতে পারি এমন ন্যাক্কারজনক হামলার পরও বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কোনো মামলা করেনি। এমনকি বিশ্ববিদ্যালয়ে আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের নিরাপত্তার জন্য কোনো প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নেয়নি যা অত্যন্ত দুঃখজনক।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like us on Facebook