রবি. নভে ২৯, ২০২০

দৈনিক আজকের বাংলাদেশ

সত্য প্রকাশে আপোষহীণ…

স্কুলের প্রধান শিক্ষাকার হাত-পা ভেঙ্গে দেয়ার অভিযোগ সাবেক ইউপি সদস্যের বিরুদ্ধে

আজকের বাংলাদেশ রিপোর্ট:

জামালপুরের বকশীগঞ্জে রড দিয়ে পিটিয়ে সাজিমারা সরকারি প্রাইমারি স্কুলের প্রধান শিক্ষিকার হাত-পা ভেঙ্গে দেয়ার অভিযোগ উঠেছে সাবেক ইউপি সদস্য হামিদুর রহমান ফর্সার বিরুদ্ধে।

বৃহস্পতিবার (২৯ আগস্ট) সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে এ ঘটনা ঘটে। আহত প্রধান শিক্ষিকা আফরোজা সুলতানা বীণা বকশীগঞ্জ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছেন।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজেলার নিলাক্ষিয়া ইউনিয়নের সাজিমারা গ্রামের বাসিন্দা সাবেক ইউপি সদস্য হামিদুর রহমান ফর্সা স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি পদে প্রার্থী হতে চায়।

এ কারণে হামিদুর রহমান ফর্সা একই গ্রামের হাবিবুর রহমান বইতুল্লাহর ছেলে রাফিউল ইসলাম রাফিকে নিজের ছেলে পরিচয় দিয়ে স্কুলে ভর্তি করায়। কিন্তু হামিদুর রহমান ফর্সার প্রতিদ্বন্দ্বীরা প্রধান শিক্ষিকা আফরোজা সুলতানা বীণাকে বিষয়টি অবহিত করে।

বিষয়টি সমাধানের জন্য প্রধান শিক্ষিকা স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম সাত্তারের কাছে একটি প্রত্যয়নপত্র চান। ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম সাত্তার তার প্রত্যয়নপত্রে উল্লেখ করেন, স্কুলছাত্র রাফিউল ইসলাম রাফি হামিদুর রহমান ফর্সার সন্তান নয়। প্রকৃতপক্ষে যে জন্ম সনদটি দাখিল করেছে সেই জন্ম সনদটি ভুয়া।

সে চেয়ারম্যানের স্বাক্ষর জাল করে স্কুলে একটি ভুয়া জন্মসনদ দাখিল করেছে। এ নিয়ে প্রধান শিক্ষিকা ও হামিদুর রহমান ফর্সার মধ্যে দ্বন্দ্ব বাঁধে।

এরই জেরে হামিদুর রহমান ফর্সা বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বিদ্যালয়ে শিক্ষিকার ওপর হামলা চালায়।

স্কুলের সহকারী শিক্ষক তারিকুজ্জামান ছোটন জানান, ফর্সা স্কুলে এসে একটি লোহার রড নিয়ে প্রধান শিক্ষিকার কক্ষে ঢুকে তালাবদ্ধ করে তাকে বেদম পেটাতে থাকে। পরে অন্যান্য শিক্ষক ও গ্রামবাসী এসে প্রধান শিক্ষিকাকে উদ্ধার করে বকশীগঞ্জ হাসপাতালে ভর্তি করান।

এ ঘটনায় প্রধান শিক্ষিকা আফরোজা সুলতানা বীণা জানান, হঠাৎ করে হামিদুর রহমান অফিস কক্ষে ঢুকে দরজা বন্ধ করে দেয়। এরপর লোহার রড দিয়ে আমার ওপর এলোপাতাড়িভাবে হামলা চালিয়ে হাত-পা ভেঙ্গে দেয়। উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা অরুণা রায় জানান, ঘটনাটি ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে অবগত করা হয়েছে। কর্তৃপক্ষের নির্দেশনা পেলেই আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like us on Facebook