দৈনিক আজকের বাংলাদেশ

সত্য প্রকাশে আপোষহীণ…

বন্দরের পশ্চিম কেওঢালায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে হামলা ও ভাংচুর

স্টাফ রিপোর্টারঃ

বন্দর উপজেলার মদনপুর ইউনিয়নের পশ্চিম কেওঢালা ভূঁইয়াবাড়ি এলাকায় জমি সংক্রান্ত পূর্ব শত্রুতার জের ধরে রোববার সকাল সাড়ে নয় টায় তোফাজ্জল হোসেন ভূঁইয়া ও তার ৩ ছেলে এবং মেয়ের জামাই দেশীয় অস্ত্র শস্ত্রে সজ্জিত হয়ে আক্তার ভূঁইয়ার বাড়িতে অতর্কিত হামলা চালিয়ে ব্যাপক ভাংচুর চালানোর ঘটনা ঘটেছে বলে অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ভূক্তভোগী আক্তার ভূঁইয়ার স্ত্রী রেশমা ইয়াসমিন (৩৫) বাদী হয়ে ১. তোফাজ্জল হোসেন ভূঁইয়া পিতা: মৃত জাহের ভূঁইয়া, ২. কবির ভূঁইয়া ৩. ছগির ভূঁইয়া ৪. শরীফ ভূঁইয়া সর্বপিতা: তোফাজ্জল হোসেন ভূঁইয়া সর্বসাং-চাঁপাতলী, নাসিক ২৭নং ওয়ার্ড, ৫. জাহিদ হাসান পিতা: মৃত-ওয়ালিউল্লাহ সাং-আমৈর, ধামগড়, বন্দর, নারায়ণগঞ্জকে বিবাদী করে বন্দর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেন। লিখিত অভিযোগের ভিত্তিতে ভূক্তভোগী আক্তার ভূঁইয়া বলেন, ‘বিবাদীরা খারাপ প্রকৃতির লোক। জমিজমা নিয়ে তাদের সাথে পূর্ব থেকেই বিরোধ চলছিলো। সেই বিরোধের জের ধরে তারা প্রায়ই আমাকে ও আমার পরিবারের সদস্যদের গালমন্দ সহ আমাদের ক্ষতি করার হুমকি দিয়ে আসছিলো। তারা প্রায়ই বিভিন্ন বিচ্ছিন্ন ঘটনা ঘটিয়ে আমাকে চাপে রাখার চেষ্টা চালিয়ে থাকে। রোববার সকালে আমি আমার কর্মস্থলে ঢাকা যাচ্ছিলাম, পথিমধ্যে বাড়ি থেকে ফোনে কল আসে এবং বলে বিবাদীরা আমার বাড়িতে হামলা চালিয়ে বাড়ির সীমানার সকল টিনের বেড়া ভেঙ্গে ফেলেছে। তখন আমি জরুরী সেবা ৯৯৯ এ ফোন দিলে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শণ করেন এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে নেয়। আমি তৎক্ষনাৎ বাড়িতে ফিরে এসে দেখি তারা বাড়ির চারপাশের টিনের বেড়া নির্বিচারে ভেঙ্গে আমার ব্যাপক ক্ষতিসাধন করেছে। মদনপুর ইউপি চেয়ারম্যান সহ এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিদের উপস্থিতিতে কয়েকবার এ বিষয়টি মীমাংসার চেষ্টা চালানো হলেও তারা খারাপ প্রকৃতির বিধায় তার মীমাংসা আজও পর্যন্ত হয়নি। বর্তমানে আমাদের পরিবারের লোকজন চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছি। তাদের বিরুদ্ধে কঠোর আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানাচ্ছি। আইনের সুশাসন পেতে নারায়ণগঞ্জ পুলিশ সুপার মহোদয় সহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন ভূক্তভোগীরা।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like us on Facebook