সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২১

দৈনিক আজকের বাংলাদেশ

সত্য প্রকাশে আপোষহীণ…

বন্দরের লক্ষণখোলায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে সন্ত্রাসীদের হামলায় গুরুত্বর আহত-২

আজকের বাংলাদেশ রিপোর্টঃ-

নারায়ণগঞ্জে বন্দর থানাধীন নাসিক ২৫নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ লক্ষণখোলার চায়না ব্যাটারী কোম্পানীর সম্মুখে ২৬ জুলাই সোমবার সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় পূর্ব শত্রুতার জের ধরে সন্ত্রাসীরা কুপিয়ে বাপ্পি সাউদ (২৮) ও শহিদুল (২৪) নামে দুই ভাইকে মারাত্মকভাবে আহত করেছে। ঘটনার দিন রাত ৯টায় বাপ্পি সাউদ বাদী হয়ে ১. আরিফ ওরফে জোজো (৩৬) পিতাঃ বডি শাহাবুদ্দিন, ২. সৌরভ (২৫) পিতাঃ মহিউদ্দিন, ৩. রাজু (৪৫) ও ৪. মিন্টু (৩৫) উভয় পিতাঃ মৃত মোবারক, ৫. সোহাগ (২৮) ও ৬. শান্ত (২৬) উভয় পিতাঃ আবুল, সর্ব সাং দক্ষিণ লক্ষণখোলা, ৭. রাহাত (২৫) ও ৮. রাসু (২২) উভয় পিতাঃ তাইজুল ইসলাম, ৯. রিংকু (২২), পিতাঃ মতিন, ১০. ইমন (২৩) পিতাঃ তাইজুল, ১১. আকাশ (২১) পিতাঃ মঞ্জুর, ১২. বাবু (২২), পিতাঃ আসলাম, ১৩. শুভ (২৩), পিতাঃ আফজাল, সর্বসাং চৌরাপাড়া, থানাঃ বন্দর, জেলাঃ নারায়ণগঞ্জকে বিবাদী করে বন্দর থানায় লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। ভূক্তভোগী বাপ্পি সাউদ জানান, সোমবার সন্ধ্যায় বিবাদীগণ ১নং বিবাদী আরিফের নির্দেশে চাকু দিয়ে আমার ডান হাতে ও পিঠে কোপ মারে। এতে আমি রক্তাক্ত গুরুত্বর জখম হলে আমার ছোট ভাই শহিদুল আমাকে বাঁচাতে এগিয়ে আসলে বিবাদীগণ তাকে হত্যার উদ্দেশ্যে রামদা দিয়ে এলোপাথারী কোপাতে থাকে। এতে তার শরীরের বিভিন্ন জায়গা জখম হয়ে সে গুরুত্বর আহত হয় এবং মাটিতে লুটে পড়ে। তখন আমাদের ডাকচিৎকারে আশেপাশের লোকজন ছুটে এলে তারা প্রাণনাশের হুমকি দিয়ে ঘটনাস্থল ত্যাগ করে। পরে স্থানীয়রা আমাদেরকে উদ্ধার করে নারায়ণগঞ্জ ভিক্টোরিয়া হসপিটালে নিয়ে ভর্তি করে। এ ঘটনার পর সমগ্র এলাকায় আতংক ছড়িয়ে পড়ে। ভূক্তভোগীরা আরও জানান, মহানগর যুবলীগের পরিচয় দিয়ে আরিফ ওরফে জোজো দক্ষিণ লক্ষণখোলাস্থ চায়না ব্যাটারী কোম্পানীর সামনে একটি অফিস করে নানান অপকর্ম ও বিভিন্ন শিল্প কারখানা এবং ট্রাকে চাঁদাবাজি করে যাচ্ছে। মাদক দিয়ে যুবসমাজ ধ্বংস করছে বলে অভিযোগ আছে তার বিরুদ্ধে। প্রতিবাদ করেও প্রতিকার পাচ্ছেনা স্থানীয়রা। এধরণের কোপানোর ঘটনা বিগত ২৫ বছরেও উক্ত এলাকায় ঘটেনি বলে জানান স্থানীয়রা। এ বিষয়ে বন্দর থানার ওসি দীপক চন্দ্র সাহা বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্তাধীন আছে। তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

এ বিষয়ে কথা বলতে ২৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর এনায়েত হোসেনের মোবাইল ফোনে কয়েকবার কল দিলেও কথা বলা সম্ভব হয়নি।

এ বিষয়ে সাবেক মহিলা কাউন্সিলর শাহী ইফাৎ জাহান মায়া বলেন, বিষয়টি সম্পর্কে আমি অবগত। তদন্ত সাপেক্ষে দোষীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়ার দাবী জানাই।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like us on Facebook