সেপ্টেম্বর ১৮, ২০২১

দৈনিক আজকের বাংলাদেশ

সত্য প্রকাশে আপোষহীণ…

বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃক বন্দরে অবৈধ উচ্ছেদ বন্ধের দাবিতে মানববন্ধন ও স্মারক লিপি প্রদান

আজকের বাংলাদেশ রিপোর্ট :-

নারায়ণগঞ্জের বন্দরে “অবৈধ উচ্ছেদ বন্ধ কর,মাননীয় মন্ত্রী মহোদয় আমাদের বাচান” সম্বলিত ব্যানারে বিআইডব্লিউটিএ কর্তৃক উচ্ছেদ অভিযানের বিপরীতে মানববন্ধন ও স্মারকলিপি প্রদান  করেছে বন্দরের উচ্ছেদ আশংকায় থাকা ভুক্তভোগী বাড়িওয়ালাবৃন্দ। এসময় তারা নৌ পরিবহন মন্ত্রাণালয়ের সচিব মো: আব্দুস সামাদ ও নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক মো: জসিম উদ্দিন এর নিকট এই বেআইনী ভাবে অবৈধ উচ্ছেদ বন্ধের দাবি ও প্রতিকার চেয়ে স্মারক লিপি প্রদান করে।

সোমবার  (৩০ ডিসেম্বর) সকাল ১১.৩০ টায় বন্দর ডেক ও ইঞ্জিন কর্মী প্রশিক্ষন কেন্দ্রের সামনে এ মানববন্ধন  ও স্মারকলিপি প্রদান  করেন ভুক্তভোগী বন্দর রুপালি আবাসিক, আমিন আবাসিক, র‍্যালি আবাসিক, ও লেজারার্স এলাকার ভুক্তভোগী বাড়ির মালিক বৃন্দরা।

বন্দর ডেক ও ইঞ্জিন কর্মী প্রশিক্ষন কেন্দ্রের একটি অনুষ্ঠানে যোগ দিতে আসেন নৌ সচিব ও নারায়ণগঞ্জ জেলা প্রশাসক, তখন ভুক্তভোগীরা তাদের কে  স্মারক লিপি দেন । স্মারক লিপি হাতে পেয়ে জেলা প্রশাসক ভুক্তভোগীদের বুধবার দেখা করতে বলেন ডিসি অফিসে।

স্মারকলিপির  মধ্যে উল্লেখ ছিল গঙ্গাকুল ‘ম’ খন্ড মৌজাস্থিত এস এ ১, ২৬৩ ও ২৬৪ তথা আর এস ৫,৬,৭,৯,১০নং দাগের সম্পওি গণ প্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকারের ভূমি মন্ত্রানালয় ও পাট মন্ত্রাণালয় হতে খরিদ করে তাতে বাড়িঘর নির্মানক্রমে পরিবার পরিজন নিয়ে বসবাস করে আসছি। দরখাস্তকারীগণের স্বত্ব দখলীয় ভূমি, নদীর সীমানা পিলারের অনেক বাহিরে হওয়া স্বত্বেও বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষের অধীনস্ত নারায়ণগঞ্জ নদী বন্দর কর্তৃপক্ষের কতিপয় কর্মচারী সি,এস রেকর্ডীয় নদী সীমানা চিহ্নিত করে দরখাস্তকারীগণকে তাদের স্বত্ব দখলীয় বাড়ি ঘর ও ব্যবসা প্রতিষ্ঠান হতে উচ্ছেদ করে তাদের নির্মিত বহুতল বিশিষ্ট ভবনসমূহ গুড়িয়ে দেয়ার হুমকি প্রদর্শন করছেন। যার ফলে দরখাস্তকারীগণ সম্পওি হারানোর চরম আশংকায় আতংকিত হয়ে দিনাতিপাত করছি। উল্লেখ্য যে, মহামান্য সুপ্রিম কোর্টের হাইকোর্ট বিভাগ কর্তৃক ৩৫০৩/২০০৯ নং
রীট মোকাদ্দমায় ২৫/০৬/২০০৯ খ্রি: তারিখের রায়ে প্রদও নির্দেশনা অনুযায়ী বাংলাদেশ সরকার পক্ষে মহোদয় এবং বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ পরিবহন কর্তৃপক্ষের প্রতিনিধি কর্তৃক শীতলক্ষা নদীর পূর্বতীরে তথা গঙ্গাকুল ‘ম’ খন্ড মৌজার পশ্চিমাংশের নদী সীমানা নির্ধারণক্রমে সীমানা পিলার স্থাপন করা হয়। আর সেই সীমানা পিলারের থেকে পূর্বপাশে মানুষের চলাচলের সরকারী খাস জমিতে নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশন কর্তৃক নির্মিত রাস্তা। এতে দরখাস্তকারীগণদের স্বত্ব দখলীয় সম্পওি নদী সীমানা পিলারের থেকে তো বটেই সরকারী রাস্তা থেকে ও অনেক পূর্বে অবস্থিত।

এ সময় মানববন্ধন ও স্মারক লিপি প্রদানের সময় বাড়িওয়ালাদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বীরমুক্তিযোদ্ধা আলী আক্কাস মীর,মোরশেদ আলম,মোঃ আল-আমিন, হাজী মহসিন (মিন্টু),নাজমুল হাসান সজীব,সাখাওয়াত,মোঃ আক্তার হোসেন,মোঃহোসেন,মোঃ নূর ইসলাম, মোঃআমিনুদ্দিন, মোঃকবির,মোঃ মনিরসহ অসংখ্য বাড়ির মালিকবৃন্দ।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like us on Facebook