জানুয়ারি ১৯, ২০২২

দৈনিক আজকের বাংলাদেশ

সত্য প্রকাশে আপোষহীণ…

বিজয় দিবস উপলক্ষে ধামগড়ে ক্রীড়ানুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন করলেন ছাত্রলীগ নেতা নির্ঝর

এমডি অভিঃ

১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে বন্দর উপজেলাধীন ধামগড় ইউনিয়নের নয়ামাটিতে স্থানীয় যুব কল্যাণ সংঘের উদ্যোগে আয়োজিত ক্রীড়া প্রতিযোগিতা ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানের শুভ উদ্বোধন করেন নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ও ভাষা সৈনিক নাগিনা জোহা সমাজ কল্যাণ পরিষদের ভাইস-চেয়ারম্যান অনাবিল দাশ নির্ঝর।

এসময় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ধামগড় ইউনিয়ন- ৭ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক মোঃ সবির হোসেন ও স্থানীয়ভাবে সর্বজন শ্রদ্ধেয় মুরুব্বি মোঃ সিরাজুল ইসলাম। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ভাষা সৈনিক নাগিনা জোহা সমাজ কল্যাণ পরিষদের অন্যতম সদস্য ঈশাকুর রহমান, ফারহান নাজমুল, অন্তর সাউদ, বন্দর থানা ছাত্রলীগ নেতা রিয়াজ আহমেদ।

অনুষ্ঠানের আয়োজনে ছিলেন ভাষা সৈনিক নাগিনা জোহা সমাজ কল্যাণ পরিষদের সাধারণ সদস্য সানি, অনিক, রাব্বি, রাকিব, জুবায়ের, হিমেল, মুন্না, শুভ, রিয়াদ, রিদয় সহ অনেকে।

অনুষ্ঠানের উদ্বোধনকালে ছাত্রলীগ নেতা অনাবিল দাশ নির্ঝর বলেন ‘আজ ১৬ ডিসেম্বর মহান বিজয় দিবসে স্বাধীনতার সুবর্ণজয়ন্তীতে বিনম্র শ্রদ্ধা জানাই হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙ্গালী জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান সহ জাতীয় ৪ নেতা, হোসেন শহীদ সোহরাওয়ার্দী, শেরে বাংলা এ কে ফজলুল হক, মাওলানা আব্দুল হামিদ খান ভাসানী সহ মহান মুক্তিযুদ্ধে অবদান রাখা সকল ব্যক্তিবর্গকে।
আজকে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে নয়ামাটি যুব কল্যাণ সংঘের আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত অতিথিদের আমি আমার নেতা তরুণ ও যুব সমাজের অহংকার জনাব অয়ন ওসমানের পক্ষ থেকে ধন্যবাদ জানাই। কারণ আপনারা আজকে এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত থেকে তরুণ প্রজন্মকে ক্রীড়া চর্চায় উৎসাহিত করেছেন।

এছাড়াও আয়োজকদেরকে আমি ধন্যবাদ দেয়ার পাশাপাশি একটা অনুরোধ করবো, আপনারা এমন সুন্দর অনুষ্ঠান বছরে শুধুমাত্র বিজয় দিবস অথবা অন্য কোনো জাতীয় দিবসে আয়োজন না করে প্রয়োজনে ছোট করে হলেও এমন অনুষ্ঠান ধারাবাহিকভাবে বিভিন্ন সময়ে আয়োজন করবেন। কারণ দেশের বিভিন্ন জায়গায় আমাদের তরুণ সমাজ মাদক সহ বিভিন্ন সামাজিক অপরাধে জড়িত হচ্ছে। এর থেকে পরিত্রাণ পেতে হলে আমাদেরকে বেশি করে খেলাধুলা ও সংস্কৃতি চর্চা করতে হবে।’

এসময় অনাবিল নির্ঝর আরও বলেন, ‘আমি এখানকার তরুণদের কাছে আরও একটি বিশেষ আহ্বান রাখতে চাই, মহান বিজয় দিবস সহ বিভিন্ন জাতীয় দিবসে আমরা দেখতে পাই সারাদেশের অনেক জায়গায় তরুণ সমাজ দিবসগুলো উদযাপনের নামে অপসংস্কৃতি চর্চা করে৷ তারা বিভিন্ন রাস্তায় ও মোরে হিন্দি ও বিদেশী আর ডিজে গান বাজিয়ে অশ্লীল নৃত্য বা উল্লাস করে। এগুলো অপসংস্কৃতি। এগুলো দেখে আমাদের আগামী প্রজন্ম ভুল ঐতিহ্য শিখবে। বিজয় দিবসে ডিজে গানে নাচার জন্য আমাদের শহীদরা প্রাণ দেয় নাই। আমাদের এই সমস্ত অপসংস্কৃতি থেকে শীঘ্রই বেরিয়ে আসতে হবে। কারণ বিভিন্ন জাতীয় দিবসে এসব অপসংস্কৃতি পালন করে আমরা আমাদের শহীদদের আত্মাকে কষ্ট দিতে পারি না।
তাই আমি বিশ্বাস করি আপনারা বিজয় দিবসে এই ধরণের ঘৃণ্য কাজ থেকে দূরে থাকবেন। আপনারা শহীদদের যথোপযুক্ত সম্মান দিবেন৷ তাদের মন থেকে শ্রদ্ধা জানাবেন। আমাদের সকল জাতীয় দিবস পালনের নির্দিষ্ট কিছু নিয়ম আছে। আপনারা সেগুলো জানবেন এবং সেভাবেই দিবসগুলো পালন করবেন।’

ছাত্রলীগ নেতা অনাবিল নির্ঝর তার বিস্তারিত বক্তব্যের শেষ পর্যায়ে আয়োজকদের পুনরায় ধন্যবাদ জ্ঞাপন করে তাদের প্রতি শুভ কামনা জানান।

১৬ ডিসেম্বর সকাল থেকে বিকাল পর্যন্ত অনুষ্ঠিত এই ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বেশ কিছু গ্রাম্য খেলা সহ ক্রিকেট ও ফুটবল খেলার আয়োজন করা হয়৷ এসব খেলায় শিশু-কিশোর সহ নারীরাও অংশ নেন। খেলা শেষে উপস্থিত সকল অতিথির বক্তব্যের পর্ব শেষে প্রতিটি খেলায় সেরা স্থান অর্জনকারীদের হাতে পুরস্কার তুলে দেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like us on Facebook