বুধ. অক্টো ২৮, ২০২০

দৈনিক আজকের বাংলাদেশ

সত্য প্রকাশে আপোষহীণ…

মহানগর ছাত্রদলের কাছে হেরে গেলেন নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদল!!

স্টাফ রিপোর্টার :-

বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদল নারায়ণগঞ্জ মহানগর শাখার বন্দর উপজেলা ছাত্রদলের সীমানা নির্ধারণ নিয়ে যে জটিলতা সৃষ্টি হয়েছিল তা অবশেষে ছাত্রদলের সাংগঠনিক অভিভাবক এবং বিএনপির ভারপ্রাপ্ত চেয়ারম্যান তারেক রহমানের হস্তক্ষেপে অবসান হয়েছে বলে জানা গেছে।

বন্দর উপজেলা ছাত্রদলকে নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রদলের আওতাভুক্ত করার মধ্যে দিয়ে এ জটিলতার অবসান ঘটেছে। লিখিত আবেদনের অল্প কিছু দিনের মধ্যেই এমন কার্যকরী সিদ্ধান্তে উপনীত হওয়ায় নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রদল উচ্ছাসিত।

ব্যাক্তিগত কোন মাইলফলক অতিক্রম না ভেবে নাঃগঞ্জ মহানগর ছাত্রদল এর সাংগঠনিক ভাবে অন্যন্য এক অর্জন বলে মনে করছেন মহানগর ছাত্রদলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা।

ইতিমধ্যে কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের পেইডে লিখিত ভাবে ঘোষনা হওয়ার পরে সেটি নিজের ফেইসবুক একাউন্টে পোষ্ট করে নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রদলের সভাপতি সাহেদ আহমেদ বলেন, নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রদলের পক্ষ থেকে তারুন্যের অহংকার তারেক রহমান সাহেবকে আন্তরিক ধন্যবাদ। ধন্যবাদ জানাই বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সংগ্রামী সভাপতি ফজলুর রহমান খোকন এবং বিপ্লবী সাধারন সম্পাদক ইকবাল হোসেন শ্যামলকে। আন্তরিক কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করছি তদন্ত কমিটি তথা কেন্দ্রীয় ছাত্রদলের বিপ্লবী সিনিয়র সহ-সভাপতি-কাজী রওনকুল ইসলাম শ্রাবণ ও সিনিয়র যুগ্ম-সম্পাদক আমিনুল ইসলাম আমিন ভাইকে। আরো ধন্যবাদ জানাচ্ছি ঢাকা বিভাগীয় টিম ছাত্রদলের সহ-সভাপতি প্বার্থ দেব মন্ডল, যুগ্ন সম্পাদক রিয়াদ এবং সহ-সাধারন সম্পাদক সিরাজ ভাইয়ের প্রতি।

এ ছাড়াও নারায়ণগঞ্জ জেলা ছাত্রদলের সভাপতি মশিউর রনি এবং সাধারণ সম্পাদক খাইরুল ইসলাম সজীবকে ধন্যবাদ জানাই আমাদের সার্বিকভাবে সহযোগিতা করার জন্য। মহানগর এবং জেলা ছাত্রদল যাতে কাধে কাধ মিলিয়ে রাজপথে সক্রিয় থাকতে পারি সেজন্য আমাদের সাংগঠনিক সম্পর্ক বৃদ্ধি হল এ পদক্ষেপের মধ্য দিয়ে।

অবশেষে বলতে চাই,আমার নেত্রী আমার মা বন্দী থাকতে দিবনা স্লোগানটি কার্যকরী করে রাজপথে সক্রিয় থেকে নেত্রীকে মুক্ত এবং বিএনপির ঐতিহ্য ফিরিয়ে এনে বাকশ্বালীদের হাত থেকে গনতন্ত্র পুনরুদ্ধার করবো ইনশাল্লাহ।

বন্দর উপজেলা ছাত্রদলের সীমানা নির্ধারণ অবসানের বিষয়টি নিয়ে বন্দর থানা ছাত্রদল নেতা মিনহাজ মিঠু’র সাথে কথা বললে তিনি বলেন, আমরা জেলা ও মহানগর ছাত্রদল যাতে কাধে কাধ মিলিয়ে রাজপথে সক্রিয় থাকতে পারি সেজন্য আমাদের সাংগঠনিক সম্পর্ক বৃদ্ধি হল, এবং সীমানা নির্ধারণ অবসানের কারনে বর্তমানে বন্দর থানা ছাত্রদলের সর্বস্তরের নেতাকর্মীরা অনেক উচ্ছাসিত ও আনন্দিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like us on Facebook