রবি. সেপ্টে ২৭, ২০২০

দৈনিক আজকের বাংলাদেশ

সত্য প্রকাশে আপোষহীণ…

সোনাবিবি সড়কের নাম পরিবর্তনে মেয়র আইভির প্রতি ছাত্রলীগ নেতা নির্ঝরের ক্ষোভ

রাশেদুল হাসান অভি:-

সাম্প্রতিক সময়ে মেয়র আইভি কর্তৃক নারায়ণগঞ্জ সিটি করপোরেশনের আওতাধীন বন্দরের সোনাকান্দা এলাকার ঐতিহাসিক সোনা বিবি সড়কের নাম পরিবর্তন করে তার পিতার নামে আলী আহাম্মদ চুনকা সড়ক নামকরণ করা নিয়ে পুরো বন্দর জুড়ে ব্যাপক সমালোচনার ঝড় উঠেছে। সচেতন মহল সহ রাজনৈতিক মহলের অনেকেই মেয়র আইভির এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধাচারণ করছেন।

এদিকে নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অনাবিল দাশ নির্ঝরও মেয়র আইভির এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

ঐতিহাসিক সোনা বিবি সড়কের নাম পরিবর্তন নিয়ে ৪ জুলাই (শনিবার) বিকালে অনাবিল নির্ঝর তার ব্যক্তিগত ফেসবুক একাউন্টে একটি পোস্ট করেন। ফেসবুক পোস্টটিতে দেখা যায়, অনাবিল নির্ঝর মেয়র আইভির এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে ক্ষোভ প্রকাশ করেন এবং মেয়র আইভি এই সিদ্ধান্ত পরিবর্তন না করলে তরুণ সমাজ বন্দরের ঐতিহ্য রক্ষায় কঠোর প্রতিবাদ করবে বলে হুসিয়ারি দেন।

ছাত্রলীগ নেতা অনাবিল নির্ঝরের এই ফেসবুক পোস্টটি সম্পূর্ণ তুলে ধরা হলোঃ

“মাননীয় মেয়র! কোনো কিছুতে অতি উৎসাহ কিংবা অতি ভক্তি কিন্তু অনর্থ ডেকে আনে…

বন্দরের একজন সন্তান হিসেবে নিজের দায়িত্ববোধ থেকে কিছু কথা বলতে আজ বাধ্য হচ্ছি!

স্বনামধন্য নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর উপজেলার সুনাম বহুকাল আগে থেকেই রয়েছে। নারায়ণগঞ্জের সকল গৌরবান্বিত ইতিহাসের অন্যতম ধারক আমাদের এই বন্দর। শত শত বছরের ইতিহাস, ঐতিহ্য বহন করে আসছে বন্দর অঞ্চলটি।

সেই সুলতান, রাজা-বাদশা ও জমিদারদের আমল থেকেই বন্দর একটি গুরুত্বপূর্ণ এবং সুপরিচিত অঞ্চল। তাই বন্দরের অনেক জায়গা এখনো সেসকল ঐতিহ্যের গৌরবময় স্মৃতি বহন করে আসছে শত শত বছর ধরে।

তার মধ্যে অন্যতম আমাদের বন্দরের সোনাকান্দা এলাকার সোনা বিবি রোডটি। নামেই প্রমাণ করে যে এই রাস্তাটি শত শত বছরের ইতিহাসকে আকরে ধরে আছে। এছাড়াও রাস্টাটির পাশে অবস্থিত ঐতিহাসিক সোনাকান্দা দুর্গটিও এই রাস্টাটির তাৎপর্য তুলে ধরে।

কিন্তু মাননীয় মেয়র! হটাৎ কি এমন হলো যে বহুকালের স্মৃতি বিজড়িত এই গৌরবান্বিত ইতিহাসকে আপনি বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে ঐতিহাসিক এই রাস্তাটির নামই বদলে দিতে চাচ্ছেন? এমনকি রাস্তাটির নাম পরিবর্তন করে সেখানে নিজের পিতার নাম দিতে চাচ্ছেন! এটি কি অতি উৎসাহ নাকি নিজ বাবার প্রতি অতি ভক্তি তা বুঝা মুশকিল। তবে আমি বলতে চাই, সবকিছুতে এমন অতি উৎসাহ অথবা অতি ভক্তি কিন্তু কখনোই ভালো ফলাফল বয়ে আনে না।

আপনি আপনার পিতার নামে এখন পর্যন্ত অনেক কিছুই করেছেন। কোনোটা সরকারি জায়গাতে আবার কোনোটা ব্যক্তিগত। সেটি নিয়ে আমাদের কোনো মাথা ব্যথা নেই।

কিন্তু এই শত শত বছরের সুপরিচিত সোনা বিবি রাস্তাটির নাম পরিবর্তন করে নিজের পিতার নামে নামকরণ করাটা কতটা রুচিসম্মত অথবা কতটা যৌক্তিক তা আমার বোধগম্য হচ্ছে না। আপনি কি বন্দরের ইতিহাস নষ্ট করতে চাচ্ছেন নাকি ক্ষমতার অপব্যবহার করে বন্দরে নিজের পিতার নাম এভাবে প্রতিষ্ঠিত করতে চাচ্ছেন তা আমার বুঝতে কষ্ট হচ্ছে।

মাননীয় মেয়র! বর্তমান করোনা পরিস্থিতে যদিও আপনি আপনার আসল রূপ আগেই নারায়ণগঞ্জবাসীকে দেখিয়ে দিয়েছেন। কেউ আপনাকে বিপদে-আপদে পাশে পায়নি! এছাড়াও নানাভাবে প্রশ্নবিদ্ধ আপনার ভূমিকা নিয়ে নাহয় কথা নাই বললাম।

কিন্তু বন্দরের বহুকালের গৌরব, আবেগ আর স্মৃতি বহন করা এই সোনা বিবি রাস্তাটির নাম পরিবর্তন করলে আপনি বন্দরবাসীর কাছে আরও কতটা নিচে নামবেন তা আমার আর বলার অবকাশ থাকে না।

আমি একজন বন্দরবাসী হিসেবে শেষ কথা এটাই বলবো যে আপনাকে নিয়ে আমার কোনো মাথা ব্যথা নেই। কিন্তু আমরা আমাদের বন্দরের গৌরবান্বিত ইতিহাস, ঐতিহ্যকে ভালবাসি। তাই আমাদের এই গৌরবময় ইতিহাস বিনষ্ট হোক সেটি আমরা কখনোই চাইনা।

তাই আপনার প্রতি আমাদের বন্দরবাসীর দাবি আপনার এই সিদ্ধান্ত পরিবর্তন করুন। নাহয় এই দাবি কঠোর প্রতিবাদে রূপান্তর হবে। প্রয়োজনে তরুণ সমাজ বন্দরের ঐতিহ্য রক্ষায় এর বিরুদ্ধে বিশাল আন্দোলন গড়ে তুলবে। অন্যায়ের বিরুদ্ধে আবারও রাজপথ প্রকম্পিত হবে তরুণ সমাজের নেতৃত্বে।

মনে রাখবেন মাননীয় মেয়র! আমরা বন্দরবাসী অধিকার আদায়ে আজ পর্যন্ত কখনো কিন্তু ব্যর্থ হইনি।

অনাবিল দাশ নির্ঝর
সাংগঠনিক সম্পাদক, নারায়ণগঞ্জ মহানগর ছাত্রলীগ।”

অনাবিল নির্ঝর ছাড়াও বন্দরের একাধিক সিনিয়র আওয়ামীলীগ নেতা সহ যুবলীগ, ছাত্রলীগ এবং বিভিন্ন রাজনৈতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ ছাড়াও সচেতন মহল ও তরুণ সমাজ মেয়র আইভির এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধাচারণ করছেন। অধিকাংশ বন্দরবাসী তাদের ঐতিহ্য এবং শত শত বছরের ইতিহাস ও স্মৃতি বিজড়িত এই সোনা বিবি সড়কের নাম পরিবর্তনে প্রবল অনিচ্ছা প্রকাশ করে মেয়র আইভির এই সিদ্ধান্তের প্রতি ক্ষোভ প্রকাশ করেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like us on Facebook