শনি. নভে ২৮, ২০২০

দৈনিক আজকের বাংলাদেশ

সত্য প্রকাশে আপোষহীণ…

হাসিনা সরকার সব সমস্যা সমাধানে সক্ষম: মাহবুবউল আলম হানিফ

আজকের বাংলাদেশ রিপোর্ট:

বাংলাদেশের সব সমস্যা সমাধানের সক্ষমতা শেখ হাসিনার সরকারের রয়েছে দাবি করেছেন আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক মাহবুবউল আলম হানিফ। এ দাবি করে বিএনপি’কে উদ্দেশ্য করে তিনি বলেন, ‘একটি অনুরোধ করব মির্জা ফখরুল (বিএনপি মহাসচিব) সাহেবকে, আপনাদের উসকানিমূলক কর্মকা- এবং কথাবার্তা বন্ধ করুন। তাহলে দেখবেন সব সমস্যার সমাধান দ্রুত হবে। দয়া করে আপনারা উসকানিটা বন্ধ রাখুন।

বৃহস্পতিবার (২৯ আগস্ট) রাজধানীর শাহবাগের শওকত ওসমান মিলনায়তনে জাতীয় শোক দিবসের আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন।

তিনি বলেছেন, দেশকে ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করতে বিএনপি-জামায়াতের একটি চক্র এখনও তৎপর। দেশ যখন উন্নয়নের ধারায় এগিয়ে যায় তখন পদে পদে বাধাগ্রস্ত করে তারা।

এই সংকট সমাধানে ‘জাতীয় ঐক্য’ গড়তে বিএনপির আহ্বানের জবাবে তিনি বলেন, রোহিঙ্গা ইস্যু জাতীয় সমস্যা এতে কোনো সন্দেহ নেই। কিন্তু আপনারা জাতির মধ্যে যে বিভেদ সৃষ্টি করেছেন, আপনাদের মুখের জাতি ঐক্যের কথা জনগণ শুনতে চায় না।

‘বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারী পলাতক খুনিদের দ্রুত দেশে ফিরিয়ে এনে বিচারের রায় কার্যকর ও নেপথ্যের ষড়যন্ত্রকারীদের শনাক্তকরণে তদন্ত কমিশন কর’ শীর্ষক এ আলোচনা সভার আয়োজন করে আওয়ামী লীগের বন ও পরিবেশ উপকমিটি।

হানিফ আরও বলেন, আমরা বলতে চাই, জাতি আজ ঐক্যবদ্ধ জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে। স্বাধীনতাবিরোধী পাকিস্তানি শক্তির সঙ্গে ঐক্যের কোনো প্রয়োজন নেই।

বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডর জন্য জিয়াউর রহমানের মরণোত্তর বিচার দাবি করে হানিফ বলেন, এই হত্যাকা-ের মূল চক্রান্তকারী বিএনপির প্রতিষ্ঠাতা জিয়াউর রহমান, যিনি বাঙালি জাতিকে বিভক্ত করেছেন। সেই জিয়াউর রহমানের বিচার না হওয়া পর্যন্ত, তার মুখোশ উন্মোচিত না হওয়া পর্যন্ত জাতির বিভক্তি দূর হবে বলে আমরা বিশ্বাস করি না।

বিএনপিবিহীন দশম সংসদে কোরাম সংকটে ১৬৪ কোটি টাকা অপচয়ের হিসাব দেয়া টিআইবির সমালোচনাও করেন হানিফ। তিনি বলেন, সেখানে (টিআইবির প্রতিবেদন) বলা হয়েছে, দশম জাতীয় সংসদ নির্বাচন জনগণের প্রত্যাশা পূরণে ব্যর্থ। আপনারা বলছেন, ২৬ মিনিটে বিল পাস হয়েছে। সমস্যাটা কোথায়?

তিনি বলেন, দেশের স্বার্থে, জনগণের স্বার্থে যদি কোনো বিল উত্থাপন হয়, সেটা সবার সম্মিলিতভাবে দীর্ঘ আলোচনার বিষয় যদি না থাকে, সবাই দ্রুত সিদ্ধান্ত নিতেই পারে। তাহলে কীসের সমস্যা?

হানিফ বলেন, আপনারা বলতে পারেন, এই বিল পাস হওয়ার কারণে দেশের উন্নয়ন ও অগ্রগতি বাধাগ্রস্ত হয়েছে কি? অন্য কোনো সমস্যার সৃষ্টি করেছে কি? বিল কীভাবে পাস হল? কত সময়ে পাস হল? সেটার সঙ্গে সংসদের (ব্যর্থ হওয়ার) যৌক্তিকতা নেই।

আলোচনা সভায় সভাপতিত্ব করেন উপকমিটির সভাপতি অধ্যাপক খন্দকার বজলুল হক। আলোচনা করেন কবি নির্মলেন্দু গুণ, বিচারপতি এ এইচ এম সামসুদ্দিন চৌধুরী মানিক, আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবির নানক, বন ও পরিবেশ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like us on Facebook