রবি. নভে ২৯, ২০২০

দৈনিক আজকের বাংলাদেশ

সত্য প্রকাশে আপোষহীণ…

নারায়ণগঞ্জের স্থানীয় একাধিক পত্রিকায় একই নিউজ ছাপানোর কারনে পাঠক সংখ্যা কমে যাচ্ছে

আজকের বাংলাদেশ রির্পোট:-

নারায়ণগঞ্জের স্থানীয় পত্রিকাগুলোর মান পাঠকদের নিকট ক্রমেই দিন দিন হ্রাস পাচ্ছে। সিন্ডিকেট করা কিছু সুবিধাভোগী সংবাদ কর্মীর একচেটিয়া সংবাদ প্রকাশের কারনে পাঠক এ সকল পত্রিকা পাঠ থেকে মুখ ফিরিয়ে নিচ্ছে। যে কোন সভা সমাবেশে প্রতিটি উপজেলায় নিজ পত্রিকার প্রতিনিধি থাকা সত্বেও তাদের নিউজ না ধরে সিন্ডিকেট সংবাদকর্মীর নিউজ প্রকাশ করা হয়। আর ঐ সিন্ডিকেট সংবাদকর্মী মঞ্চের নেতাদের মন জয় করতে একশ থেকে দুইশত টাকা পেলেই সন্তুুষ্ট মনে চলে আসে। ফলে একই ছবিতে একই নিউজ সংগ্রহ করে পাঠিয়ে দেয় বিভিন্ন পত্রিকা অফিসে। রাত পোহালে সকালে পাঠকের নিকট চলে যায় সেই সব পত্রিকা। আর পত্রিকার পাতা খুললেই দেখা যায় একই ছবিতে হুবহু নিউজ। যা পড়তে বসে পাঠক বিভ্রান্তিবোধ করে। তার কারন হিসেবে জানা যায় ঐ সিন্ডিকেট সংবাদকর্মীর সাথে সম্পাদক মন্ডলীর মাসিক চুক্তিবদ্ধ করা আছে । যার জন্য নিউজ হোক আর না হোক প্রতি মাসে তাকে দিতে হয় পাচঁশত টাকা থেকে এক হাজার টাকা। যে টাকার বিনিময়ে বিভিন্ন পত্রিকার সম্পাদক নিজ প্রতিনিধির সংবাদ না তুলে সিন্ডিকেট সংবাদকর্মীর সংবাদ ছাপিয়ে দেয়। তাছাড়া ঐ সিন্ডিকেট সংবাদকর্মীর যখন একই নিউজ বিভিন্ন পত্রিকায় চলে আসে তখন সে নিজেকে ফেইসবুকে জাহির করে এটা তার লিখা সংবাদ। আর জনসম্মুখে প্রচার করে আমি এই পাঁচটি পত্রিকার সাংবাদিক। এই সকল পত্রিকায় একমাত্র তার দেয়া সংবাদই ছাপানো হয়। নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক বিভিন্ন পত্রিকার প্রতিনিধি ক্ষোভ প্রকাশ করে জানায় উপজেলা প্রতিনিধি হওয়া সত্বেও আমার প্রতিবেদন ছাপানো হয়নি। অথচ অন্য উপজেলার এক সিন্ডিকেট সংবাদকর্মীর সংবাদ ছাপানো হলো। এটা আমাদের জন্য সবচেয়ে বড় দু:খ ও লজ্জার বিষয়। তাছাড়া অনেক সময় আবার সিন্ডিকেট সংবাদকর্মীর একই সংবাদ বিভিন্ন পত্রিকায় চলে আসলে পাঠকবৃন্দ সমালোচনা করতে থাকে। অনেকেই আবার তিরস্কার করে বলে পত্রিকার সম্পাদক কোন নিউজ না পেয়ে অন্য পত্রিকা থেকে নিউজ তুলে দেন। এমনকি হেড লাইন ও হুবহু একই। এ বিষয়ে কিছু রাজনীতি সচেতন ব্যাক্তির নিকট জানতে চাইলে তারা বলেন সংবাদ মাধ্যম গোপনীয়তার বিষয়। আর প্রতিটি পত্রিকার সংবাদের ধরন থাকবে ভিন্নভিন্ন ভাব ধারা। সে ক্ষেত্রে যদি একই ছবি একই হেড লাইনে একই নিউজ বিভিন্ন পত্রিকায় ছাপানো হয় তবে সে পত্রিকা থেকে পাঠক মুখ ফিরিয়ে নেয়। পত্রিকা পড়ার আগ্রহ হারিয়ে ফেলে পাঠক জনতা। তাছাড়া স্থানীয় পত্রিকার কিছু সনামধন্য সম্পাদকের নিকট এ বিষয়ে জানতে চাইলে তারা বলেন, যারা একজন সংবাদকর্মী দিয়ে একই সংবাদ ও ছবি দিয়ে পাঁচ সাতটি পত্রিকায় প্রচার করে তারা হীনমন্যতার লোক। তারা সেবার নামে ব্যবসা করে থাকে। তাদের পত্রিকার কোন নিয়ম বালাই নেই। তাছাড়া এসকল পত্রিকা আন্ডার গ্রাউন্ডের পত্রিকা নামে পরিচিত। তাদের বয়কট করা উচিত।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like us on Facebook