বুধ. অক্টো ২১, ২০২০

দৈনিক আজকের বাংলাদেশ

সত্য প্রকাশে আপোষহীণ…

নগরীতে চিকিৎসা অবহেলায় নারীর মৃত্যু, হাসপাতাল ভাঙচুর

আজকের বাংলাদেশ রিপোর্ট:

শহরের চাষাঢ়ায় কেয়ার জেনারেল হাসপাতালে মিলি (৩০) নামে এক নারীর মৃত্যুতে হাসপাতাল ভাঙচুর করেছেন স্বজনরা। স্বজনদের অভিযোগ, কেয়ার জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা অবহেলার কারণে তার মৃত্যু হয়েছে। তবে হাসপাতালের লোকজন জানায়, রোগী স্ট্রোক করে মৃত্যুবরণ করেছেন।

সোমবার (৩০ সেপ্টেম্বর) বেলা ৩টায় হাসপাতালে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মিলি শহরের ফতুল্লার সস্তাপুর এলাকার ব্যবসায়ী শাহ্ আলমের স্ত্রী।

নিহতের ভাবী ইভা আক্তার জানান, মিলির মাথায় ব্যাথ্যাজনিত সমস্যা নিয়ে শহরের পপুলার ডায়াগনস্টিক সেন্টারে মেডিসিন ও রোগ বিশেষজ্ঞ ডা. জাহেদ আলীর শরনাপন্ন হন। চিকিৎসক তাকে হাসপাতালে ভর্তি করার পরামর্শ দেন। রোববার রাতে রোগীকে চাষাঢ়ায় কেয়ার জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। এদিকে সোমবার দুপুর তিনটায় রোগীর স্বজনদের জানানো হয়, রোগী স্ট্রোক করে মারা গেছেন।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, চিকিৎসকদের অবহেলায় মিলির মৃত্যু হয়েছে। সারারাত কোন নার্স ছিল না রোগীর পাশে। দিনেও তাদের দেখা যায়নি। পরে হঠাৎ করে জানালো রোগী মারা গেছে। ডেথ সার্টিফিকেট ছাড়াই অতি দ্রুত তারা লাশ হস্তান্তর করার জন্য পাগল হয়ে গেছিলেন। হাসপাতালের লোকজনের অবহেলার কারণেই আমার ননদ মারা গেছে।

এদিকে নিহতের স্বামী শাহ্ আলম স্ত্রীকে হারিয়ে শোকে পাগলপ্রায়। তিনি বিলাপ করে বলছিলেন, আমারে ওষুধ কিনতে নিচে পাঠাইলো। পরে আইসা দেখি অ্যাম্বুলেন্সে উঠাইছে। কিন্তু আমার কইলজায় যে মইরা গেছে সেইটা জানায় নাই।

তিনি আহাজারি করে বলেন, আমি আমার মাইডারে কি কমু? আমারেও মাইরা ফালান নাইলে আমিও মইরা যামু। আমার ছয় বছরের মেয়েটা! আমার কইলজাটারে ফিরাইয়া দেন।

এদিকে মিলি চিকিৎসার জন্য কেয়ার হাসপাতালে কোন চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে ছিলেন তা জানাতে নারাজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। তবে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক হাসপাতালের এক স্টাফ জানান, ডা. ফয়সাল নামে এক চিকিৎসকের তত্ত্বাবধানে ছিলেন মিলি। তবে ডা. ফয়সালকে হাসাপাতালের কোথাও পাওয়া যায়নি। এমনকি হাসপাতালের কেউ তার ফোন নম্বরটিও দিতে রাজি হননি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like us on Facebook