রবি. সেপ্টে ২৭, ২০২০

দৈনিক আজকের বাংলাদেশ

সত্য প্রকাশে আপোষহীণ…

নাঃগঞ্জে বন্দরে হাসপাতাল কর্তৃক রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হলেও উচ্ছেদে ব্যর্থ কাউন্সিলর

আজকের বাংলাদেশ ডেস্ক:

নারায়ণগঞ্জ জেলার বন্দর নাসিকের অন্তর্গত ২২নং ওয়ার্ড পুলিশ ফাঁড়ি সংলগ্ন আমিন আবাসিক এলাকায় ১নং রোডে স্থিত ছায়ানুর জেনারেল হাসপাতালের অবৈধ ভাবে গভীর নলকূপ স্থাপনের জন্য নাসিকের রাস্তার মধ্যে নির্মাণ করা হাউজের বিষয়ে কোন প্রকার ব্যবস্থা গ্রহণ করেনি নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের ২২নং ওয়ার্ড কমিশনার সুলতান আহমেদ ভূঁইয়া। এ বিষয়টি তিনি রহস্যজনকভাবে এড়িয়ে যাচ্ছেন। এতে করে উক্ত এলাকাবাসীর মধ্যে চরম ক্ষোভ বিরাজ করছে৷ এর আগে কাউন্সিলর সুলতান বিভিন্ন গভীর নলকূপের জন্য রাস্তার মধ্যে স্থাপিত হাউজ উচ্ছেদ করলেও ছায়ানূর জেনারেল হাসপাতালের ক্ষেত্রে তিনি রহস্যজনক ভাবে নীরব ভূমিকা পালন করে যাচ্ছেন। ছায়ানূর জেনারেল হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ রাস্তার মধ্যে ইটের দেয়াল দিয়ে পানি রাখার হাউজের মত স্থাপন করে জনগনের চলাচলের রাস্তায় বিঘ্নিত করছে। এছাড়াও হাউজের মধ্যে থাকা গোবর মিশ্রিত পানি রাস্তায় গড়িয়ে পড়ে চলাচলে বিঘ্ন সহ দুর্গন্ধ ছড়াচ্ছে।

এই বিষয়ে গত শুক্রবারে কাউন্সিলর সুলতান আহমেদ এর সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি জানিয়ে ছিলেন  গভীর নলকূপ বসানোর জন্য হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের অফিস আদেশ আছে। অপরদিকে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের জামান নামের একজন জানান আমাদের কোনো কাগজপত্রে এখনো পারমিশন পাইনি তবে আবেদন করেছি আগামী সপ্তাহে হয়তো পেতে পারি। কিন্তু চার দিন অতিবাহিত হলেও এই বিষয়ে কাউন্সিলর সুলতান কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেননি। অন্যদিকে বন্দর থানা পুলিশের একটি টিম সেখানে আসলেও রহস্যজনক কারণে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করে চলে যায়।

এছাড়াও কাউন্সিলর সুলতান আহমেদ জানান, নারায়ণগঞ্জ সিটি কর্পোরেশনের একজন ঠিকাদার তাকে অনুরোধ করেছেন এই বিষয়ে যাতে তিনি কোন পদক্ষেপ না নেন। গত সোমবার সুলতান আহমেদ এর  সাথে যোগাযোগ করলে তিনি প্রতিবেদক টিম কে তা অবিহিত করেন।

এবিষয়ে ছায়ানুর হাসপাতাল এর জামানের কাছে গণমাধ্যম কর্মীরা জানতে চাইলে কিভাবে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ পারমিশন পাওয়ার আগেই রাস্তায় প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করে হাউজ নির্মাণ করলো এমন প্রশ্নে জামান জানান, এ বিষয়ে কাউন্সিলরকে অবগত করেছি তাই হাউজটি নির্মাণ করেছিলাম।

কাউন্সিলর সুলতান আহমেদ এর এইরকম উদাসীনতায় ব্যাপক সমালোচনার সৃষ্টি হয়েছে উক্ত এলাকায় এবং সেই সাথে তার এরূপ কর্মকাণ্ড বিতর্কিত করেছে সিটি কর্পোরেশন এর ভাবমূর্তি।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like us on Facebook