শনি. ডিসে ৫, ২০২০

দৈনিক আজকের বাংলাদেশ

সত্য প্রকাশে আপোষহীণ…

নারায়ণগঞ্জের বন্দরে ত্রাণবাহী ভ্যানগাড়ি রাস্তায় থামিয়ে লুটে নিলো ক্ষুর্ধাতরা

আজকের বাংলাদেশ রিপোর্ট :-

নারায়ণগঞ্জের বন্দরে ইনসি সিমেন্ট কম্পানির ত্রাণবাহী ভ্যানগাড়ি রাস্তায় থামিয়ে লুটে নিলো মাহমুদনগরে ক্ষুর্ধাত মানুষেরা। ত্রাণবাহী ভ্যানগাড়ি দুইটি ২০নং ওয়ার্ডে বিতরণ করার উদ্দেশ্যে ইনসি সিমেন্ট কম্পানির ভিতর থেকে বাহির করলেই লুট করে তারা।

শনিবার ২ মে সকালে ইনসি সিমেন্ট কম্পানির সামনেই এ ঘটনা ঘটে। পরে এলাকার কর্মহীন মানুষের বরাদ্দকৃত প্রায় ১০০ মতো ত্রাণের প্যাকেট লুট করে নিয়ে যায়।

এদিকে ত্রাণ লুটের বিষয় ইনসি সিমেন্ট কম্পানির বিগ্রেডিয়ার এ একেএম মাহাবুব হাসানের সাথে মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, আমাদের ২টি ত্রাণবাহী গাড়ির মাল এলাকার কিছু লোকজন লুট করে নিয়েছে। কেন লুট করে নিয়েছে জানতে চাইলে তিনি গড়িমসি বক্তব্য দিয়ে থাকেন। এবং সিসিটিভি ফুটেজ দেখতে চাইলে তিনি বলেন আমি এই মূহুর্তে বাহিরে আছি, আপনাদের ফুটেজ দিতে পারবো না। জানা গেছে, করোনা ভাইরাসের পরিস্থিতিতে ২০নং ওয়ার্ডের কর্মহীন হয়ে পড়া ঘরবন্ধী ১২০০ মানুষকে ইনসি সিমেন্ট কম্পানির পক্ষ থেকে ১০ কেজি চাউল, ১ কেজি আটা ও ১ কেজি করে ডাল দেয়ার কথা জানান কর্তৃপক্ষ। এর প্রেক্ষিতে ২ মে শনিবার সকালে ত্রাণ বিতরণ করা হবে বলে জানান ইনসি সিমেন্ট কম্পানির কর্তৃপক্ষ।
তবে ত্রাণ বিতরণের পূর্বে ইনসি সিমেন্ট কম্পানির গোপন সূত্রে এলাকাবাসী জানতে পারে ৫ কেজি চাউল, ১ কেজি আটা ও ১ কেজি ডাল বিতরণ করবে। এ খবর পেয়ে ২০/২৫ জন লোক ত্রাণবাহী দুইটি ভ্যানগাড়িতে থাকা ১০০ ত্রাণের প্যাকেট লুট করে তারা। ত্রাণ লুটের বিষয় মাহমুদনগর পঞ্চায়েত কমিটির সাধারণ সম্পাদক জাহাঙ্গীর আলম জানান, আমরা এলাকার পঞ্চায়েতের পক্ষ থেকে ইনসি সিমেন্ট কম্পানি থেকে ওয়ার্ডের জন্য ২ হাজার লোকের খাবার চেয়েছি কিন্তু তারা এত লোকের খাবার দিতে পারবে না। পরে ১২০০ লোকের নাম লিষ্ট করে জমা দেই। আজ সকালে ত্রাণ বিতরণ করার জন্য প্রথমে দুইটি ত্রাণবাহী ভ্যানগাড়ি বের করা হলে আমিসহ সেখানে উপস্থিত থাকেন আব্দুল খালেক, মিন্টু, খোরশেদ আলম, হাজী আমিরসহ কম্পানির লোকজনের সামনে থেকে ২০/২৫ জন লোক দলবেধে লুট করে নিয়ে যায়। পরে বাকী ত্রাণগুলো দেয়া বন্ধ করে দেন কর্তৃপক্ষ।

ত্রাণ লুট হওয়ার খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে ছুটে আসে মদনগঞ্জ পুলিশ ফাঁড়ির এস আই তাহিদ উল্ল্যাাহ। পরে ফাঁডির ইনচার্জ ইন্সপেক্টর সৈদয় মিজানুর রহমান এসে ইনসি সিমেন্ট কম্পানির ভিতরে প্রবেশ করে। তিনি বের হয়ে আসলে ত্রাণ লুটের বিষয় জানতে চাইলে তিনি সাংবাদিকদের জানান ত্রাণ নিয়ে একটু ঝামেলা হয়েছিল।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like us on Facebook