রবি. সেপ্টে ২০, ২০২০

দৈনিক আজকের বাংলাদেশ

সত্য প্রকাশে আপোষহীণ…

সদর ইউএনও এর হস্তক্ষেপে বাল্য বিবাহ পন্ড

আজকের বাংলাদেশ রিপোর্ট:

নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) নাহিদা বারিকের হস্তক্ষেপে বাল্য বিবাহের হাত থেকে রক্ষা পেয়েছে আকলিমা আক্তার (১৪) নামের এক স্কুল ছাত্রী।

শুক্রবার (৩০ আগস্ট) দুপুরে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার ফতুল্লার কাশীপুর ইউনিয়নের দেওভোগ শেষ মাথার গাঙ্গুলী বাড়ী এলাকায় গিয়ে এই বাল্যবিবাহ বন্ধ করেন ইউএনও নাহিদা বারিক। ইউএনও নাহিদা বারিক ঘটনাস্থলে গিয়ে বিবাহের অনুষ্ঠান বন্ধ করে দেন এবং বর ও কনের পরিবারকে সতর্ক করেন। আর বাল্যবিবাহেরহাত থেকে রক্ষা করা আকলিমা আক্তার নামের ঐ স্কুল ছাত্রীর লেখাপড়ার দায়িত্ব নিয়েছেন উপজেলা প্রশাসন।

এলাকাবাসী জানান, ফতুল্লার দেওভোগ শেষ মাথার গাঙ্গুলী বাড়ি এলাকার আবুল মিয়ার মেয়ে আকলিমা আক্তার (১৪) এর সাথে একই এলাকার ফরিদ মিয়ার ছেলে রমজান হোসেনের (১৮) বিবাহের আয়োজন করেন উভয় পরিবার। শুক্রবার তাদের বিবাহ অনুষ্ঠান সম্পন্ন হওয়ার কথা ছিলো। নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলার নির্বাহী অফিসার (ইউএনও) নাহিদা বারিক গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জানতে পারে একটি এলাকায় বাল্যবিবাহ হচ্ছে। পরে তিনি কাশিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান এম সাইফউল্লাহ বাদল ও ফতুল্লা থানা পুলিশকে সাথে নিয়ে সেই এলাকায় মেয়ে ছেলের বাড়িতে হানা দেয়। পরে ঘটনার খোজ খবর নিয়ে জানতে পারে ছেলে মেয়ে কারোর বিয়ের বয়স হয়নি। ছেলে ও মেয়ের পরিবারকে এক সাথে করে বাল্যবিবাহ ভেঙ্গে দিয়ে মেয়ের ১৮ বছর পূর্ন না হওয়ার আগে বিয়ে না দিতে সতর্ক করে দেয়া হয়। আর ইউএনও নাহিদা বারিকের কথা শুনে মেয়েকে ১৮ বছর পূর্ন হওয়ার পূর্বে বিয়ে না দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন অভিভাবক।

এ ব্যাপারে ইউএনও নাহিদা বারিক বলেন, বাল্য বিবাহের সংবাদ পেয়ে দ্রুত ঘটনাস্থলে গিয়ে বিবাহ বন্ধ করে দেয়া হয়। আর তাদের বিবাহের বয়স না হওয়ার আগে বিবাহ না দেয়ার প্রতিশ্রুতি দেন মেয়ের পরিবার। পরে খবর নিয়ে জানতে পারলাম মেয়ের পরিবার অত্যন্ত দরিদ্র। মেয়ের বাবা অটো রিকশা চালায় আর মা বাসায় বসে সেলাই কাজ করেন। তাই মেয়েকে লেখাপড়া করানোর জন্য উপজেলা প্রশাসন দায়িত্ব নিয়েছে এবং মেয়ের মা জোবেদা বেগমকে একটি সেলাই মেশিন দেয়ার ঘোষনা করা হয়। আর মেয়ের পরিবারকে সরকারী বরাদ্ধকৃত প্রতি মাসে ৩ কেজি করে চাল দেয়ার কথা বলা হয়।

তিনি আরও বলেন, যেখানে বাল্য বিবাহ হবে সেখানে প্রতিরোধ গড়ে তোলতে হবে। বাল্যবিবাহ রোধে প্রতিটি এলাকায় গণসচেতনা তৈরি করতে হবে। বাল্য বিবাহ বন্ধ করতে সরকার কঠোর পদক্ষেপ গ্রহন করেছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like us on Facebook