সোম. নভে ৩০, ২০২০

দৈনিক আজকের বাংলাদেশ

সত্য প্রকাশে আপোষহীণ…

স্ত্রী ও পরকিয়া প্রেমিক হাসানের বিরুদ্ধে এক অসহায় স্বামীর নানা অভিযোগ

আজকের বাংলাদেশ রির্পোট :-

নারায়ণগঞ্জে দেওভোগ এলাকার পরকিয়া আসক্ত স্ত্রী হাসিনা বেগম মুন্নি ও পরকিয়া প্রেমিক হাসানের হাত থেকে রেহাই পেতে বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেরাচ্ছে এক অসহায় স্বামী লিটন মিয়া।

সোমবার ১৫ জুলাই সদর থানা এলাকার সামনে সাংবাদিকদের তিনি তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে নানা অভিযোগ তুলে ধরেন।

তিনি গত ১৪ জুলাই নারায়ণগঞ্জ জজ কোর্টে এড. মোস্তাফিজুর রহমানের নিকট তার স্ত্রী হাসিনা বেগম ওরফে মুন্নীর কাছে একটি লিগ্যাল নোটিশ প্রেরন করেন। এর পর থেকেই তার স্ত্রী বেপরোয়া হয়ে উঠেন।

লিগ্যাল নোটিশে তিনি উল্লেখ করেন,গত ৩ বছর পূর্বে ১৭-০৬-২০১৬ইং তারিখে ৬৩নং এইচ এম সেন রোডস্থ মৃত হেলাল উদ্দিনের ছেলে মোঃ লিটন মিয়ার সাথে চাদঁপুর জেলার গুলিশা গ্রামের মৃত কুদ্দুছ মিজির সাথে ইসলামিয়া শরিয়া মোতাবেক রেজিষ্ট্রি কাবির মূলে বিবাহ সম্পন্ন হয়। স্ত্রী হাসিনা বেগম মুন্নি পূর্বের স্বামী মামুন মিয়াকে তালাক দিয়ে বর্তমান স্বামী লিটন মিয়ার সঙ্গে বর্তমানে ১৮৭নং দেওভোগ পাক্কা রোডে একটি ভাড়া বাড়িতে বসবাস করে আসছিল। উভয়ের দাম্পত্ত জীবন সুখেই কাটছিল। স্বামী লিটন মিয়া তার স্ত্রী মুন্নির নামে দিঘলদী মৌজায় একটি জমিও খরিদ করেন। হটাৎ গত রমজান মাসে পারিবারিক কলহ সৃষ্টি হয়। স্বামী জানতে পারে তার স্ত্রী তার অগোচরে সুদের ব্যবসা ও পরকিয়া প্রেমে আসক্ত হয়। এর জের ধরে উভয়ের মধ্যে বাকবিতন্ডা হয়। পরে স্বামী লিটন মিয়াকে বহিরাগত লোকজন দিয়ে গালমন্দ করে ঘর থেকে বের করে দেয়। এ বিষয়ে একাধিকবার স্বামী লিটন মিয়া স্ত্রী মুন্নির বিরুদ্ধে সামাজিক ভাবে দেন দরবার করেও কোন সুরাহা পায়নি। পরে চাদঁপুর দেশের বাড়ী থেকে ফিরে এসে একই গ্রামের হাসান নামে এক যুবকের সাথে পরকিয়ার লিপ্ত হয়ে আরো বেপরোয়া হয়ে যায়। বিভিন্ন সময়ে ওই পরকিয়া প্রেমিকের সাথে স্বামী লিটনের কষ্টার্জিত টাকা দিয়ে বিভিন্ন স্থানে ঘুরে বেড়াত ও ফোনে স্বামী প্রতিবাদ করলে তাকে দেওভোগ এলাকার বিভিন্ন লোকজন দিয়ে হুমকি প্রদান করত। পরে পরকিয়া প্রেমিক হাসানের পরামর্শে ৩জুন একটি হলফনামা সম্পাদন করেন ও কাজি অফিসের একটি তালাক নামা লোক মারফত স্বামী লিটন মিয়ার কাছে প্রেরন করেন। এরপর থেকে বিভিন্ন সময়ে লিটনকে তার স্ত্রী মুন্নি তার সাথে কোন যোগাযোগ করতে নিষেধ করেন। যোগাযোগের চেষ্টা করা হইলে স্ত্রীর লোকজন দিয়ে প্রানে মেরে ফেলার হুমকি দেন। বর্তমান স্বামী লিটন মিয়াকে তালাকের ইদৎ পূর্ণ হওয়ার আগেই হাসানের সঙ্গে অবৈধভাবে মেলামেশা করছে বলে জানা যায়।

এই অবস্থা থেকে পরিত্রান পেতে জীবনের নিরাপত্তার আশায় স্বামী লিটন মিয়া তার স্ত্রী হাসিনা বেগম মুন্নি ও তার পরকিয়া প্রেমিক মুন্নির হাত থেকে রেহাই পেতে প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের হস্তক্ষেপ কামনা করছে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like us on Facebook