শনি. নভে ২৮, ২০২০

দৈনিক আজকের বাংলাদেশ

সত্য প্রকাশে আপোষহীণ…

স্বামী-শাশুড়ীর নির্যাতনে প্রতিবন্ধী গৃহবধু মৃত্যু পথযাত্রী!

আজকের বাংলাদেশ ডেস্ক:-

বন্দরে প্রতিবন্ধী গৃহবধূর উপর অমানবিক নির্যাতনের অভিযোগ উঠেছে।কয়েক বছর আগে ফরাজীকান্দা পূর্ব পাড়া মাদরাসা রোড নিবাসী মৃত এমারত হোসেন এবং হামিদা আক্তারের মেয়ে শাহনাজ আক্তার (২৮)’র সঙ্গে নারায়ণগঞ্জ শহিদ নগর এলাকার শাহ জামাল(৩৫) এর সাথে বিবাহ হয়। তাদের সাড়ে তিন বছরের একটি ফুটফুটে কন্যা সন্তান আছে নাম সুরাইয়া আক্তার। প্রতিবন্ধী হবার কারনেই কাল হয়ে দাড়ায় শাহনাজ আক্তার। স্বামী- শাশুড়ী কর্তৃক অমানবিক নিযার্তন সহ্য করতে হয় দিনের পর দিন। কিন্তু একমাত্র কন্যা সন্তানের কথা চিন্তা করে তাদের সব অমানবিক নির্যাতন মুখ বুজে সহ্য করে আসছেন শাহনাজ আক্তার। গত দুমাস আগে খুন্তি ছ্যাকা দিয়ে মেয়ে রেখে বাপের বাড়ী তাড়িয়ে দেয়। মৃত পিতার বাড়ী বন্দরে এসে কয়েকদিন কয়েকদিন থাকাকালিন সময়ে স্থানীয় জনপ্রতিনিধিরা তাকে প্রতিবন্ধীর আর্থিক সহায়তা পাবার জন্য উপজেলা পরিষদে নিয়ে গেলে নিবার্হী অফিসার শুক্লা সরকার তাকে বাচ্চাসহ একটি বকরী উপহার দেয়। খবর পেয়ে লোভী স্বামী-শাশ্বুরী তাকে নিতে আসলে প্রতিবন্ধী শাহনাজ তার একমাত্র সন্তানের মায়া ছারতে না পেরে আবারও তাদের সাথে তার শ্বশুরবাড়ী শহিদ নগর চলে যায়। তার স্বামী তাকে না জানিয়ে সে ছাগল দু’দিনের মধ্যেই বিক্রি করে দেয়। পরে জানতে পারলে শাহনাজ আক্তার প্রতিবাদ করলে তার স্বামী তাকে অকথ্য ভাষায় গালামন্দসহ প্রচন্ড মারধর করে। তাকে বিভিন্ন যায়গায় ভিক্ষা করতে বলে। একমাত্র মেয়েকে দেখাশোনা করার জন্য বাসায় থাকতে চাইলে জোর পূর্বক তাকে হুইল চেয়ারে বসিয়ে নারায়ণগঞ্জ শহরের বিভিন্ন অলি গলিতে ছেড়ে আসতো। যখন বাসায় আসতো তখন দেখতো তার স্বামী বাসায় অন্য মেয়ে দিনের পর দিন আমোদ প্রমোদে ব্যাস্ত থাকতো। তার সামনে অন্য মেয়ে নিয়ে ফুর্তি ও রাত কাটানোর জন্য অসহায় প্রতিবন্ধী শাহনাজ আক্তার প্রতিবাদ করলে তাকে স্বামী,শ্বাশুরী মিলে গরম খুন্তির ছ্যাকা পিঠের নিজ থেকে পায়ের উপর দিয়ে অমানবিক নির্যাতন চালায়। চুল কেটে তার মেয়ে রেখে আধমরা অবস্থায় তার মায়ের বাড়ীতে পাঠায়। শাহনাজের ভাই তার একমাত্র বোনের এ রকম নির্যাতন দেখে বন্দর থানায় সাধারন জিডি করতে গেলে এক পুলিশ কর্মকর্তা বলেন জিডি এখানে করা যাবে না, যেখানে নির্যাতিত হয়েছে সেই শহিদ নগর এলাকার থানায় জিডি করতে হবে । শারিরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে নারায়ণগঞ্জ পপুলার ডায়াগনিস্টিক হাসপাতালে নিয়ে গেলে চিকিৎসক বলেন যে তার পিঠের মাংস পচে ক্যান্সার হয়েছে। বর্তমানে তার অবস্থা খুবই আশংকাজনক। যে কোন সময় মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়তে পারে। এ রকম অমানবিক নির্যাতনের জন্য মাননীয় প্রধান মন্ত্রী শেখ হাসিনার কাছে সঠিক বিচার চেয়েছেন নির্যাতিত অসহায় প্রতিবন্ধী মৃত্যু শয্যাষ্যায়ী শাহানাজ আক্তার ও তার পরিবার।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like us on Facebook