বৃহঃ. অক্টো ১, ২০২০

দৈনিক আজকের বাংলাদেশ

সত্য প্রকাশে আপোষহীণ…

ইহুদিদের এমন পরিস্থিতিতে বিশ্ব সম্প্রদায়ের প্রতিক্রিয়া কি এমনই হতো?

আজকের বাংলাদেশ রিপোর্ট:

ভারত অধিকৃত কাশ্মীরে মানবিক সংকট ও সেখানকার নাগরিকদের অবরুদ্ধ জীবনযাপনের বিষয়টি বিশ্ববাসীর সামনে তুলে ধরে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বলেছেন, ‘ভারতের উগ্রপন্থী সরকারের হাতে সেখানে ভয়ঙ্কর কিছু ঘটার আগেই আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের এ বিষয়ে কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে হবে।’

বুধবার (২৪ সেপ্টেম্বর) নিউইয়র্কে জাতিসংঘ সদর দফতরে কাশ্মীর নিয়ে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ কথা বলেন তিনি। একইসঙ্গে কারফিউ প্রত্যাহারের পর কাশ্মীরে গণহত্যারও আশঙ্কা প্রকাশ করেন পাক প্রধানমন্ত্রী।

ইমরান খান বলেন, ‘কাশ্মীর ইস্যুটি আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত একটি বিরোধপূর্ণ বিষয়। গণভোটের মাধ্যমে কাশ্মীরিদের নিজেদের অধিকার বেছে নেয়ার কথা ছিল। কিন্তু গত ৭০ বছর যাবত তাদের এ অধিকার থেকে বঞ্চিত রাখা হয়েছে।

কাশ্মীরে ভারতীয় বাহিনীর অত্যাচারের কথা তুলে ধরে পাক প্রধানমন্ত্রী বলেন, গত ৫১ দিন ধরে ৮০ লাখ কাশ্মীরিকে অবরুদ্ধ করে রাখা হয়েছে। ৯ লাখের বেশি সেনা মোতায়েন করা হয়েছে উপত্যকাটিতে। আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে বিষয়টি অবশ্যই নজরে নিতে হবে।

এসময় বিশ্ব নেতাদের উদ্দেশে প্রশ্ন রেখে ইমরান খান বলেন, ‘যদি আজকে ইহুদিরা এমন অবরুদ্ধ অবস্থায় জীবনযাপন করতো, তাহলে কি বিশ্ব সম্প্রদায়ের প্রতিক্রিয়া এমনই হতো? যেমন তারা কাশ্মীর ইস্যুতে নীরব রয়েছেন।

জাতিসংঘে অবরুদ্ধ কাশ্মীরিদের পক্ষে সোচ্চার থাকবেন জানিয়ে ইমরান খান বলেন, আমি জাতিসংঘের সাধারণ অধিবেশনে কাশ্মীর ইস্যুটি নিয়েই লড়ার জন্য এসেছি। উপত্যকাটিতে ভারত সরকারের নির্মম অত্যাচারের বিষয়টি বিশ্ববাসীর সামনে তুলে ধরতে হবে। কারণ বিগত ৭০ বছর যাবত তারা ভারত সরকারের হাতে নিপীড়িত হয়ে আসছে।

সংবাদ সম্মেলনে পাকিস্তানের পররাষ্ট্রমন্ত্রী শাহ মাহমুদ কোরেশি ও জাতিসংঘে নিয়োজিত পাকিস্তানের স্থায়ী দূত মালিহা লোদিও উপস্থিত ছিলেন।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

Like us on Facebook